বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ড গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২nd সেপ্টেম্বর ২০১৫

বাংলাদেশ রেশম উন্নয়ন বোর্ড এর চলমান প্রকল্পের তালিকা

 

ক্রমিক নং

প্রকল্পের নাম ও মেয়াদকাল

প্রাক্কলিত ব্যয়

প্রকল্প এলাকা

মুল কার্যক্রম

 বাংলাদেশে রেশম শিল্পের সমপ্রসারণ ও উন্নয়নের জন্য সমন্বিত পরিকল্পনা। (জুলাই,২০১৩-জুন ২০১৭)

৩০৮০ লক্ষ টাকা

সমগ্র বাংলাদেশ

দেশের বিভিন্ন সহানে ২০টি রেশম পল্লী সহাপন,১০.০০ লক্ষ তুঁতচারা উৎপাদন ও রোপণ, ১২.০০ লক্ষ রেশম কীটের রোগমুক্ত ডিম উৎপাদন,৪৭৫০ জন নুতন রেশম চাষী সৃষ্টিসহ ২৫৩০  জন রেশম চাষীকে রেশমের বিভিন্ন পর্যায়ে প্রশিক্ষণ প্রদান,রেশম চাষীদেরকে তুঁতচাষ ও পলুপালনে আর্থিক সহায়তা ও সরঞ্জামাদি প্রদান। ৮টি চাকী পলুপালন কেন্দ্রের সমপ্রসারণ ও পুনর্বাসন কাজ এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেশম বীজাগারে দ্বিতল রিয়ারিং ভবন নির্মাণ ও রংপুর রেশম বীজাগারে দ্বিতল আঞ্চলিক রেশম সমপ্রসারণ কার্যালয়-কাম-প্রশিক্ষণ কেন্দ্র নির্মাণ। উৎপাদিত রেশম গুটি বাজারজাতকরণে সহায়তা প্রদান ও গ্রামীণ দরিদ্র জনগোষ্ঠির কর্মসংসহানের সুযোগ সৃষ্টিকরণ।

পার্বত্য চট্রগ্রাম জেলাসমুহে রেশম চাষ সম্প্রসারণ (৩য় পর্যায়) (জুলাই’২০১৩ থেকে জুন’২০১৬ পর্যন্ত)।

৩০০ লক্ষ টাকা

পার্বত্য চট্রগ্রাম জেলাসমুহের ১০ টি উপজেলায় কর্মকান্ড চলমান রয়েছে।

পার্বত্য জেলা-সমুহের সম্ভাবনাময় এলাকায় রেশম চাষ সম্প্রসারণের মাধ্যমে দরিদ্র জনগোষ্ঠির আত্ম- কর্মসংস্হান ও দারিদ্র বিমোচন এর জন্য ৩ লক্ষ তূঁতচারা উৎপাদন  ও বিতরণ,  ১০১৫ জনের প্রশিক্ষণ প্রদান,   ৯০হাজার DFLs সরবরাহ, ১০ হাজার কেজি কোকন ক্রয় , পলু পালন সামগ্রী  (ডালা-১৫০০. চন্দ্রকী-১৫০০. ঘড়া-১৫০. সূতার জাল-১৫০০) সহায়তা প্রদান, রেশম সম্প্রসারণ এলাকায় চাকী-কাম- পলুপালন প্রদর্শনী প্লট করে দরিদ্র জনগোষ্ঠিকে রেশম চাষে সম্পৃক্তকরণ , রেশম গুটি ও সূতা উৎপাদনের মাধ্যমে হতদরিদ্র জনগোষ্ঠির বাড়তি আয়ের বাবস্হা করা; সরকারী আর্থিক সহায়তার উপর নির্ভরশীলতা হ্রাস করে রেশম চাষের মাধ্যমে ৩টি পার্বত্য জেলার দরিদ্র উপজাতি ও অ-উপজাতি জনগোষ্ঠিকে স্বাবলম্বী করে তোলা ।


Share with :
Facebook Facebook